পল্লবীতে দুর্ধর্ষ চুরি: চোরের পরনে দামি পোশাক-কেডস


hadayet প্রকাশের সময় : জানুয়ারী ২৪, ২০২৩, ৩:৫৭ পূর্বাহ্ন /
পল্লবীতে দুর্ধর্ষ চুরি: চোরের পরনে দামি পোশাক-কেডস

চারজনই সুঠাম দেহের। পায়ে দামি কেডস ও স্যান্ডেল। সবারই পরনের শার্ট-প্যান্টে আভিজাত্য। দুজনের ফ্রেঞ্চকাট দাড়ি। প্রথম দেখায় উচ্চশিক্ষিত ভাবতে বাধ্য। অথচ এমন বেশভূষায় তারা রোববার দিনদুপুরে দুর্ধর্ষ কায়দায় রাজধানীর পল্লবীর ৬ নম্বর সেকশনের ২ নম্বর রোডের ১৭ নম্বর বাড়ির তৃতীয় তলার ফ্ল্যাট থেকে ১৮ লাখ টাকা ও প্রায় ১৭ লাখ টাকা মূল্যের স্বর্ণালংকার চুরি করেছে।

ওই ভবনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে এমনই চোর চক্রের দেখা মিলেছে। চোরদের পোশাক-আশাক ও চেহারা দেখে বিস্মিত পুলিশ কর্মকর্তারা। বিস্ময়ের শেষ নেই ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যদেরও। ওই বাসার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বিশ্নেষণে চার তরুণকে দুপুর দেড়টার দিকে বাসায় ঢুকতে দেখা যায়। চুরি শেষে ১৫ মিনিট পর তারা বেরিয়ে যায়।

পুলিশের মিরপুর বিভাগের ডিসি জসীম উদ্দিন জানান, চোরদের পোশাক-আশাক ও চেহারা দেখে তাঁরা বিস্মিত। সাধারণত এমন বেশভূষায় কারও বাসায় চুরি করতে দেখা যায় না। এ জন্য অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে চুরির মামলার তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

পল্লবীর সহকারী পুলিশ সুপার আবদুল হালিম  জানান, পল্লবীর ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনতে সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে। সাধারণত চোর চক্রের চেহারার যেমন অবয়ব থাকে, পল্লবীতে তা দেখা যায়নি।

ওই ফ্ল্যাটের গৃহকর্ত্রী হোসনা আক্তার জানান, সিসি ক্যামেরার ফুটেজে কয়েকজনের চেহারা দেখা গেলেও তারা তাঁদের পরিচিত নন। একজনের মুখে মাস্ক ছিল। অন্যরা মাস্ক ছাড়া। ঘটনার দিন পরিবারের কোনো সদস্য বাসায় ছিলেন না।

স্বামী ও এক ছেলেকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা যান হোসনা। আরেক ছেলে বেড়াতে রাঙামাটি যান। ফাঁকা ফ্ল্যাটে হানা দেয় চোর চক্র। রোববার গ্রামের বাড়ি থেকে বাসায় ফিরে বিষয়টি দেখতে পান। তৃতীয় তলায় ওঠার সময় সব ফ্লোরের বাতি নেভানো পান হোসনা। নিজেদের বসবাসের ফ্ল্যাটের দরজায় গিয়ে তালা ভাঙা দেখে থমকে যান। বাসার সব কক্ষে লাইট জ্বলছিল ও ফ্যান ঘুরছিল। নিজেদের সুরক্ষার কথা ভেবে পাশের ফ্ল্যাটের দরজার বাইরে তালা দিয়েছিল চোররা।