দুর্গম এলাকা থেকে আসা খেলোয়াড়দের জন্য হোস্টেল হবে রাঙামাটিতে- যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী


hadayet প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২৩, ৪:১১ পূর্বাহ্ন / ৫৩
দুর্গম এলাকা থেকে আসা খেলোয়াড়দের জন্য হোস্টেল হবে রাঙামাটিতে- যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

রাঙামাটির দুর্গম এলাকা থেকে জেলা শহরে খেলতে আসা খেলোয়াড়দের অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। দূরত্বের কারণে দিনে এসে দিনে বাড়ি যেতে পারেন না, রাত্রিযাপন করতে অসুবিধা হয়। তাদের সুবিধার জন্য জেলা শহরে হোস্টেল গড়ে তোলা হবে। ৫০ তম জাতীয় স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া (গ্রীষ্মকালীন) ফুটবল প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি।

তিনি আরও বলেন, রাঙামাটি স্টেডিয়ামে একটি অংশ (৩৭০ ফিট) বাউন্ডারি হয়নি। এই অংশে কর্তৃপক্ষ জায়গা করে দিলে প্রকল্পের মাধ্যমে পরবর্তীতে বাউন্ডারি করা হবে।

মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, হ্রদ পাহাড়ের জেলা রাঙামাটির সন্তানরা ক্রীড়া অঙ্গনে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ দিয়েছেন। সারাবিশ্বে দেশের পতাকা তাদের মাধ্যমে উদীয়মান হয়েছে। আজ রাঙামাটির তিনটি উপজেলায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। দ্রুত বাঘাইছড়ি উপজেলায়ও করা হবে। ফলে রাঙামাটির সন্তানরা বিশ্বের দরবারে দেশকে উঁচু করতে আরও বেশি ভূমিকা রাখবে এবং রাঙামাটির কোন খেলোয়াড় অসুস্থ হয়ে পড়লে বঙ্গবন্ধু ক্রীড়া ফাউন্ডেশন থেকে তাদের সার্বিক সহযোগিতাসহ শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া শিক্ষা বৃত্তি দেওয়া হবে।

শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাঙামাটি চিংহ্লামং মারী স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন এবং জাতীয় স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে এ প্রতিযোগিতার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মারুফ আহম্মেদ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন।

এদিকে ফাইনাল খেলায় বালক দলে মুখোমুখি হয় জুরাছড়ির সুবলং খাগড়াছড়ি উচ্চ বিদ্যালয় ও বিলাইছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। টানটান উত্তেজনাময় খেলায় নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গোল দিতে না পারায় ট্রাইবেকারে যায় দু’দল। পরে ট্রাইবেকারে বিলাইছড়ি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এক গোলের ব্যবধানে জয় লাভ করেন।

অন্যদিকে বালিকা দলের খেলায় চ্যাম্পিয়ন হন কাউখালি উপজেলা এবং রানার্সআপ হন জুরাছড়ি উপজেলা বালিকা দল।

আলোচনা সভা শেষে অতিথিরা বালক ও বালিকা দলের চ্যাম্পিয়ান ও রানার্সআপ হওয়া দলদের মাঝে ট্রফি তুলে দেন। এসময় খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সভাপতি দীপংকর তালুকদার (এমপি) বিজয়ী বিলাইছড়ি উপজেলা উচ্চ বিদ্যালয় দলকে ত্রিশ হাজার এবং রানার্স আপ জয়ী জুরাছড়ি উপজেলার শুভলং খাগড়াছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়কে পনেরো হাজার টাকা অনুদান দেন।

অনুষ্ঠানে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মৃদুল কান্তি দে, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক নিরূপা দেওয়ান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও পুরস্কার বিতরণীর আগে মনোজ্ঞ নৃত্য পরিবেশন করা হয়।