পৃথিবীর কোথাও তত্ত্বাবধায়ক সরকারপদ্ধতি নেই : ওবায়দুল কাদের


hadayet প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২০, ২০২২, ৩:৪৬ পূর্বাহ্ন /
পৃথিবীর কোথাও তত্ত্বাবধায়ক সরকারপদ্ধতি নেই : ওবায়দুল কাদের

পৃথিবীর কোথাও তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি নেই দাবি করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ক্ষমতায় যেতে হলে নির্বাচনে অংশ নিতে হবে। ক্ষমতার পরিবর্তন হলে নির্বাচনের মাধ্যমেই হতে হয়। নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পরিবর্তনের কোনো বিকল্প নেই। 

তিনি বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার এলে তিন মাসের জায়গায় দুই বছর থাকে। তারা (বিএনপি) এখন ক্ষমতার রঙিন খোয়াব দেখছে। খোয়াব যত পারেন দেখেন। খোয়াব কতজনই তো দেখে, তাতে কিছু আসে-যায় না।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) ঐতিহাসিক ভাওয়াল রাজবাড়ি মাঠে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা দয়া করে দণ্ডিত আসামি আপনার নেত্রীকে বাসায় রেখেছেন। লজ্জা করে না, গণঅভ্যুত্থান করবেন, নেত্রীর মুক্তির জন্য একটি মিছিলও করেত পারেননি। দেশনেত্রী বলতে বলতে আপনার মুখ থেকে ফেনা বের হয়। দেখতে দেখতে ১৩ বছর, আন্দোলন হবে হবে করতে ১৩ বছর! এই বছর না সেই বছর, মানুষ বাঁচে কয় বছর।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবারও বলেছেন, খেলা হবে। ডিসেম্বরে খেলা হবে। ডিসেম্বর বিজয়ের মাস। মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের মাস। ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগ মাঠে থাকবে, আন্দোলনের মোকাবিলা হবে। ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে ‘বাংলাদেশ নালিশ পাটি’ অভিহিত করে বলেন‘ এরা বিদেশির কাছে নালিশ করে বেড়ায়। বিদেশিদের কাছে জিজ্ঞাসা করতে পারেন না, কোন দেশে তত্ত্বাবধায়ক আছে? দুনিয়ার অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয় বাংলাদেশেও সেভাবে নির্বাচন হবে।

গাজীপুরের বিশাল জমায়েত লক্ষ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, টেলিভিশনের পর্দায় সিলেটের সঙ্গে গাজীপুরকে মিলিয়ে দেখুন। গাজীপুরে শুধু মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন আর সিলেটে পাঁচ জেলার মানুষ হাজির হয়েছে। তিনদিন আগে থেকে ঢল নামিয়েছে। কাঁথা, বালিশ, বিছানাপত্র, হাঁড়ি-পাতিল সব নিয়ে নেতাকর্মীরা সারাদেশ থেকে সিলেটে গেছে। খানাপিনা ভালোই চলছে। পাতিলে পাতিলে খাবার, গরুর মাংস, খাসির মাংস, মুরগির মাংস, মাছের কোপ্তার পর পেপসিকোলা বা কোকাকোলা। ভালোই আছে বিএনপি। ক্ষমতায় না থাকলে কী হবে, এখনো তারা ভালোই আছে।

সম্মেলন উপলক্ষে বেলা ১১টার দিকে অনুষ্ঠানস্থল ভাওয়াল রাজবাড়ি মাঠের ফটকগুলো খুলে দেওয়া হয়। এসময় মাঠ লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে। দুপুরের পর গাজীপুরের প্রধান সড়ক রাজবাড়ি রোডে সব যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে ওবায়দুল কাদের গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসাবে অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক আতাউল্যা মন্ডলের নাম ঘোষণা করেন।