নেইমারকে নিয়েই আজ নামছে ব্রাজিল


hadayet প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৫, ২০২২, ৪:২৬ পূর্বাহ্ন / ১৬
নেইমারকে নিয়েই আজ নামছে ব্রাজিল

কাতার বিশ্বকাপে হেক্সা মিশনে নামা ব্রাজিল আজ কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে নামছে। শেষ ষোলোর ম্যাচে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের সামনে দক্ষিণ কোরিয়া। এ ম্যাচের আগে ব্রাজিল সমর্থকদের সুখবর দিয়েছেন দলটির কোচ তিতে। তিনি গতকাল জানিয়েছেন, দক্ষিণ কোরিয়া ম্যাচের জন্য ফিট হয়ে উঠেছেন নেইমার, যিনি গোড়ালির চোটে পড়ায় গ্রুপ পর্বের শেষ দুই ম্যাচ খেলতে পারেননি। আজ দোহার স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ ব্রাজিল-কোরিয়া লড়াই শুরু হবে রাত ১টায়।

গতকাল ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে নেইমার ফিট হয়েছেন কিনা, সেই প্রশ্ন করা হলে তিতে বলেন, হ্যাঁ। সে আজ (গতকাল) ও আগামীকাল (আজ) অনুশীলন করবে এবং যদি ভালো অনুশীলন করে তবে সে খেলবে।

প্যারিস সেন্ট জার্মেই তারকা সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে ৯টি ট্যাকলের শিকার হন এবং নিকোলা মিলেনকোভিচের মারাত্মক এক ট্যাকলে তার ডান গোড়ালির লিগামেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ৮০ মিনিটে তাকে তুলে নেয়া হয়। কেঁদে মাঠ ছাড়া নেইমার বলছিলেন, এটা তার ক্যারিয়ারের কঠিনতম মুহূর্ত। সেই থেকে নিবিড় পরিচর্যায় সেরে উঠছিলেন ৩০ বছর বয়সী খেলোয়াড়। এটাই তার শেষ বিশ্বকাপ বলে ঘোষণা দিয়েছেন নেইমার। তাই শেষ মিশনে শিরোপা জিততে প্রত্যয়ী বলেই তিনি মাঠে ফিরতেও মরিয়া ছিলেন।

চোট থেকে সেরে উঠলেও নেইমারকে বদলি হিসেবে না নামিয়ে ম্যাচের শুরু থেকেই খেলাতে চান তিতে, যদি তিনি ফিট থাকেন। তিতের কথায়, আমি আমার সেরা খেলোয়াড়টিকে শুরু থেকেই খেলানোর পক্ষে। এ সিদ্ধান্ত কোচকেই নিতে হয় এবং দায়ভারও তার কাঁধে।

নেইমারকে ছাড়া ব্রাজিল যথেষ্ট ধুঁকেছে এবং ক্যামেরুনের কাছে তো হেরেই বসেছে। নেইমারের প্রভাব নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার কোচ পাওলো বেন্তো বলেন, অবশ্যই আমি বলব না যে যখন নেইমার খেলেন তখন ব্রাজিলকে মোকাবেলা করা ভালো, কিন্তু আমি অন্তত বিপক্ষ দলের সেরা খেলোয়াড়দেরই দেখতে চাই।

শনিবার ব্রাজিলের জন্য দুঃসংবাদ বয়ে আনেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস ও অ্যালেক্স টেলেস। তবে গতকাল সুখবর হয়ে এসেছে নেইমার ও ডিফেন্ডার দানিলোর ফিট হয়ে ওঠা। জেসুস ও টেলেসের বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেলেও দানিলো খেলতে তৈরি।

টানা দুই জয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত করা ব্রাজিল গ্রুপের শেষ ম্যাচে হেরে বসেছে ক্যামেরুনের কাছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে গিয়ে ম্যাচটিতে হেরেছে সেলেসাওরা। এমনকি এই প্রথম আফ্রিকার কোনো দলের কাছে বিশ্বকাপে হেরে যায় লাতিন জায়ান্টরা। তার প্রভাব পড়ে পয়েন্ট টেবিলে। কেবল গোল ব্যবধানেই সুইজারল্যান্ডকে পেছনে ফেলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে তিতের দল। তাতে শেষ ষোলোয় প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা সামনে পেয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াকে।

বেন্তের দক্ষিণ কোরিয়া গ্রুপের শেষ ম্যাচে পর্তুগালকে ২-১ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোয় নাম লেখায়। উরুগুয়ের সঙ্গেও গোলশূন্য ড্র করে কোরীয়রা, আর ঘানার কাছে ২-৩ গোলে হারলেও দুর্দান্ত লড়াই করে দলটি। এবার তাদের সামনে চলতি বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট, তারকাবহুল দল ব্রাজিল। কোরিয়া দলের কেউ কি ভিনসেন্ট আবুবকর হতে পারবেন আজ?

গত ২ ডিসেম্বর লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে একাদশে ব্যাপক পরিবর্তন আনা ব্রাজিলকে পুরো ম্যাচেই হতাশ করে ক্যামেরুন। অবশেষে ৯২ মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করে ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ করেন ক্যামেরুন স্ট্রাইকার ভিনসেন্ট আবুবকর।

তাতে অবশ্য সেলেসাওদের নকআউটে ওঠা আটকায়নি। টানা নবমবারের মতো বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে জায়গা করে নিয়েছে লাতিন জায়ান্টরা। সর্বশেষ সাত আসরেই তারা দ্বিতীয় রাউন্ডের বাধা টপকেছে। ১৯৯০ সালে তারা এ রাউন্ডে আর্জেন্টিনার কাছে পরাজিত হয়। উল্লেখ্য, ব্রাজিল একমাত্র দল হিসেবে বিশ্বকাপের সবগুলো আসরে খেলার গৌরব অর্জন করেছে। সেই সঙ্গে সর্বোচ্চ পাঁচবারের শিরোপাজয়ী দলও তারা।

এটা ব্রাজিল ও দক্ষিণ কোরিয়ার অষ্টম লড়াই হতে চলেছে। যদিও বড় কোনো আসরে এটাই প্রথম দেখা। আগের সাত লড়াইয়ে ব্রাজিল ছয়টি ও কোরিয়া একটি জিতেছে। সর্বশেষ গত জুনে এশিয়ার দলটিকে ৫-১ গোলে হারায় সেলেসাওরা। কোরীয়দের জন্য অনুপ্রেরণা পর্তুগালের বিপক্ষে তাদের জয় আর কাতার বিশ্বকাপে একের পর এক বড় দলের পতন। এমনকি ব্রাজিলও তার বাইরে নয়, যাদের হারিয়েছে ক্যামেরুন। তবে দক্ষিণ কোরিয়া কেন নয়?