খালাস জটিলতায় পচেছে টিসিবির ২০০ টন পেঁয়াজ


hadayet প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২, ৪:৫৬ পূর্বাহ্ন /
খালাস জটিলতায় পচেছে টিসিবির ২০০ টন পেঁয়াজ

খালাস জটিলতায় চট্টগ্রাম বন্দরে পচেছে টিসিবির ২০০ টন পেঁয়াজ তুরস্ক থেকে আমদানিকৃত ১১টি লটের মধ্যে একটি লটের পেঁয়াজ পচে বিনষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্রেডিং করপোরেশনের (টিসিবি) চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্র সূত্রটি আরো জানায়, সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান সময়মতো শিপিং ডক্যুমেন্ট দাখিল করতে না পারায় পেঁয়াজগুলো খালাস করতে পারেনি টিসিবি এসব পেঁয়াজ প্রায় এক মাস ধরে পড়েছিল চট্টগ্রাম বন্দরের ইয়ার্ডে পচে যাওয়া পেঁয়াজের বাজার মূল্য প্রায় ৫০ লাখ টাকা টিসিবি চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কার্যনির্বাহী (অফিস প্রধান) জামাল উদ্দিন আহমেদ শুক্রবার ইত্তেফাককে বলেন, চুক্তি অনুসারে পচে যাওয়া পেঁয়াজের জন্য টিসিবিকে কোনো ধরনের মূল্য পরিশোধ করতে হবে না তুরস্কের সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে। সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান থেকে সময়মতো কাগজপত্র না আসায় পেঁয়াজগুলো খালাস নেওয়া যায়নি। এক মাস ধরে পড়েছিল চট্টগ্রাম বন্দর ইয়ার্ডে। এসব পেঁয়াজের অবস্থা দেখার জন্য  সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন চট্টগ্রাম বন্দরে এসছিল বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, তুরস্কের সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে চুক্তি অনুসারে ভালো পেঁয়াজের দামই দেওয়া হবে। তার মতে খবরটি বেশ পুরোনো। কারণ তুরস্ক থেকে ১১টি লটে যেসব পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে তা বিগত চার/পাঁচ মাস আগের ঘটনা।

এদিকে স্থানীয় জনসাধারণ অভিযোগ করছেন যে, টিসিবির পচে যাওয়া পেঁয়াজ নগরীর ইপিজেড এলাকায় টিসিবি কার্যালয়ের পাশের পুকুর পাড়ে ফেলে দেওয়ায় বিকট দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে আশপাশের এলাকায়।

টিসিবি সূত্র জানায়, খালাসকৃত এসব পেঁয়াজের পচে যাওয়া পেঁয়াজ বাছাই করে গত ৩১ আগস্ট ফেলে দেওয়া হয়। তবে ক্রেতাসাধারণের অভিযোগ নগরীতে টিসিবির ট্রাক থেকে কেনা পেঁয়াজের মধ্যে কিছু কিছু পচা পেঁয়াজও মিলছে। ট্রাকের পচা পেঁয়াজ তুরস্ক থেকে আমদানিকৃত কি না এ বিষয়ে নিশ্চিত করে তারা কিছু বলতে পারেননি।

টিসিবি সূত্র মতে, পচা পেঁয়াজ মাটিতে পুঁতে ফেলা হচ্ছে। এগুলোর উপর ব্লিচিং পাউডার ছিটিয়ে দেওয়া হচ্ছে।